বাড়ি খেলাধুলা হোয়াইট ওয়াশের শংকা পেয়ে বসেছে গাঙ্গুলিকে

হোয়াইট ওয়াশের শংকা পেয়ে বসেছে গাঙ্গুলিকে

248

আইসিসি টেস্ট র‌্যাংকিংয়ের এক নম্বর দল ভারত। দ্বিতীয় স্থানে থাকা দক্ষিণ আফ্রিকার সাথে তাদের ব্যবধানটা ১৯ রেটিং পয়েন্টের । আর পাঁচ নম্বরে থাকা ইংল্যান্ডের সাথে এই পার্থক্যটা ২৮ পয়েন্টের। কিন্তু ইংলিশদের ঘরের মাঠে চলতি সিরিজে র‌্যাংকিংয়ের ছিটেফোঁটা ছাপও নেই ভারতীয়দের খেলায়। ইতিহাস গড়ার প্রত্যয় নিয়ে ইংল্যান্ড সফরে গেলেও তার ছিটে ফোটাও চোখে পড়েনি ভারতীয়দের খেলায়। ওয়ানডে সিরিজে হার দিয়ে শুরু সফর। তারপর টেস্ট সিরিজেতো আরো বিধ্বস্ত। এরই মধ্যে পাঁচ ম্যাচের সিরিজের প্রথম দুটিতে হেরে পিছিয়ে পড়েছে ২–০ ব্যবধানে। ভারতের বিশ্বসেরা ব্যাটসম্যানদের খুঁজেই পাওয়া যাচ্ছেনা এই সিরিজে। এজবাস্টনে সিরিজের প্রথম টেস্টে অধিনায়ক বিরাট কোহলি একাই লড়াই করলেও দলের হার এড়াতে পারেননি। আর অভিজাত লর্ডসে পরের ম্যাচে কোহলিও রান করতে ব্যর্থ হলে ইনিংস হারের লজ্জায় পড়ে যায় ভারত। দুই ম্যাচে বোলাররাও ছিলেন না ভাল ফর্মে।

এমতাবস্থায় দেশটির সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি আশঙ্কা করছেন ৫–০ ব্যবধানে সিরিজ হেরে যেতে পারে ভারত। ব্যাটসম্যানদের এমন হতাশাজনক পারফরম্যান্স ও বোলারদের প্রত্যাশা না মেটাতে পারা বোলিংয়ে সিরিজের পরের তিন ম্যাচের ব্যাপারে আশাবাদী হতে পারছেন না গাঙ্গুলি। হোয়াইট ওয়াশের শংকা পেয়ে বসেছে ভারতের সফল এই অধিনায়ককে। ভারতীয় টিভি চ্যানেলে এক টকশোতে ‘দাদা’ খ্যাত এই সাবেক ক্রিকেটার বলেন, বিরাট কোহলির দল যদি এভাবেই খেলতে থাকে তাহলে আমি নিশ্চিত ৫–০ ব্যবধানে সিরিজ হেরে যাবে। অথচ টি–টোয়েন্টি সিরিজের পর আমরা সবাই ভেবেছিলাম এবারের টেস্ট সিরিজে ভালো করবে ভারত। এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকায় ওয়ানডে সিরিজ জেতার পরেও ভেবেছিলাম ঘরের বাইরে বারবার হেরে যাওয়ার ধারা হয়তো শেষ হতে যাচ্ছে। কিন্তু লর্ডস টেস্টে লজ্জাজনক পারফরম্যান্সের পর খুবই খারাপ লাগছে।

এসময় অভিজাত লর্ডস ক্রিকেট গ্রাউন্ডে স্বদেশী ক্রিকেটারদের হতাশাজনক পারফরম্যান্সের ব্যাখ্যায় গাঙ্গুলি বলেন, এমন অনেক ক্রিকেটার আছে যারা নিজেদের পুরো ক্যারিয়ারেই লর্ডসে খেলার সুযোগ পায় না। সেখানে ভারতীয় ক্রিকেট দল ৮০ ওভারের মধ্যে ২ বার অলআউট হয়ে গেল। মাত্র তিন দিনেরও কম সময়ে হেরে বসেছে ভারতের মত দল। দেড়শ রানও করতে পারেনি একটি ইনিংসেও। লর্ডসে প্রথম ইনিংসেতো এক সময় শতরানের নিচে অল আউট হওয়ার শংকায় পড়ে গিয়েছিল ভারত। শেষ পর্যন্ত সে লজ্জা থেকে বাঁচতে পারলেও তিন দিনে হারের লজ্জা থেকে বাঁচতে পারেনি। সৌরভ গাঙ্গুলি বলেণ হার–জিত খেলারই অংশ। কিন্তু মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতাতো থাকতে হবে। প্রথম দুই ম্যাচে ভারতের খেলায় আমি সেটার ছিটেফোঁঁটাও দেখিনি। প্রথম ম্যাচটা যেভাবে হেরেছে ভারত তা সত্যিই হতাশার। আর দ্বিতীয় টেস্টের কথা না বলাই ভাল। যেখানে ইংল্যান্ডের একজন বোলার সেঞ্চুরি তুলে নেয় সেখানে আমাদের ব্যাটসম্যানরা একশ রান পার করতে হিমশিম খায়। তিনি বলেন এ ধরনের পারফরম্যান্স দিয়ে আপনি ইংল্যান্ডের মত দলের বিপক্ষে ভাল কিছু আশা করতে পারবেন না। কারণ এমনিতেই নিজেদের কন্ডিশনে ইংল্যান্ড সব সময় কঠিন প্রতিপক্ষ। সেখানে আপনাকে ভাল করতে হলে বেশ সাবধানতার সাথে খেলতে হবে। আপনাকে পরিস্থিতি অনুধাবন করতে হবে। ইংলিশ পেসাররা বল হাতে আগুন ঝরাচ্ছেন। আর ভারতের সিমাররা উইকেটের সাথে লড়াই করছেন। কাজেই এমতাবস্থায় পরের তিন টেস্টে ভারত সকি করবে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছেনা। তাই আমার মধ্যে শংকা তৈরি হয়েছে সিরিজে ৫–০ ব্যবধানে হেরে যায় কিনা ভারত।